June 29, 2022

Knight TV

fight for justice

স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামীর মৃত্যুদন্ড

২০১৬ সালের ১৬ এপ্রিল দুপুরে খুলনা জেলার দিঘলিয়া উপজেলায় পদ্মবিলা ও বামনডাঙ্গা বিলের মাঝে আত্রাই নদীর সংযোগস্থলে মস্তকবিহীন একটি লাশ উদ্ধার হয়। পুলিশ এ হত্যাকান্ডের কোনো কুলকিনারা না পেয়ে পরবর্তীতে মামলাটি সিআইডিতে হস্তান্তর করা হয়। সিআইডি’র পুলিশ পরিদর্শক মীর আতাহার আলী তদন্ত করে স্বামী পরিমল বাইন ও টিপু শেখকে গ্রেপ্তার করে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পরিমল বাইন তার স্ত্রী হত্যার বিষয়টি স্বীকার করে। ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবান বন্দি প্রদান করে।

পরিমল বাইনের একাধিক বিয়ের ঘটনা জেনে যাওয়ায় স্ত্রী মিনারানী পোদ্দার স্বামীর সাথে খারাপ ব্যবহার করত। তাকে হত্যার জন্য পরিকল্পনা করতে থাকে স্বামী পরিমল। হত্যার জন্য ১০ হাজার টাকায় ভাড়া করা হয় একই এলাকার খুনী টিপু সুলতানকে। সে অনুযায়ী মিনা রানীকে স্বামী ঐ বছরের ১৩ এপ্রিল রাতে টিপু সুলতানের বাড়ি নিয়ে যায়। নেওয়ার সাথে সাথে খুনী দা দিয়ে তার দেহ থেকে মাথা বিচ্ছিন্ন করে ফেলে। পরে চুক্তি অনুযায়ী নিহতের স্বামী খুনীকে ১০ হাজার টাকা প্রদান করে। ২০১৭ সালের ২০ জুন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা তাদের দু’জনকে আসামি করে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। বিচার চলাকালীন সময়ে আসামি টিপু সুলতানের মৃত্যু হলে তাকে অব্যহতি দেওয়া হয়।

স্ত্রী হত্যার দায়ে স্বামী পরিমল বাইনকে ফাঁসির দড়িতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদন্ড কার্যকরের আদেশ দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে তাকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। আজ রোববার (২২ আগস্ট) খুলনা সিনিয়র দায়রা জজ আদালতের বিচারক মশিউর রহমান চৌধুরী এ রায় ঘোষণা করেন