June 29, 2022

Knight TV

fight for justice

শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখার এমন কিছু উপায়।

অতিরিক্ত ওজন অনেক মানুষেরই বড় একটি সমস্যা। কিন্তু ওজন কমাতে অনেকেই ব্যায়াম করতে চান না, অনেকে ব্যায়াম করতে চাইলেও সময় মেলাতে পারেন না। আবার নিয়ম মেনে খাওয়াদাওয়া করাও অনেকের পক্ষে সম্ভব নয়। তাহলে কীভাবে ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়?

শরীরের ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখার এমন কিছু উপায় নিচে দেয়া হলো-

১। সময় নিয়ে খান
ধীরে ধীরে অল্প পরিমাণে খান। ভালো করে চিবিয়ে নিয়ে তবেই খাবার গিলবেন। আমাদের মস্তিষ্ক শরীরকে ইঙ্গিত পাঠায় কখন খিদে মিটছে। কিন্তু তা করতে একটু সময় লাগে। তাই ধীরে ধীরে খান। কত তাড়াতাড়ি আপনি খাবার শেষ করছেন, তার ওপর নির্ভর করে আপনার ওজন।

২। ছোট প্লেট নিন
যখনই তেলেভাজা বা ফ্রেঞ্চ ফ্রাইয়ের মতো অস্বাস্থ্যকর খাবার খাচ্ছেন, ছোট প্লেট নিন। বড় প্লেটে অল্প নিলে মনে হবে, আরও খাবার নেওয়া প্রয়োজন। এতে বেশি খাওয়ার প্রবণতা তৈরি হয়।

৩। প্রোটিন বেশি খান
সকালে মাখন পাউরুটি বা দুধ-সিরিয়াল এর বদলে ডিম সিদ্ধ খান দুটো করে। এই ভাবেই প্রোটিনের পরিমাণ বাড়ান সহজ উপায়। তাতে খিদে কম পায় এবং খাওয়ার পর বেশ কয়েক ঘণ্টা শরীরে ক্যালোরি কম যায়।

৪। অস্বাস্থ্যকর খাবার দূরে রাখুন
চানাচুর, মিষ্টি, চিপস বা চকোলেট চোখের আড়ালে রাখুন। রান্নাঘরের তাকের পিছনে দিকে তুলে রাখতে পারেন। তার বদলে ড্রাই ফ্রুট বা বাদাম জাতীয় স্বাস্থ্যকর খাবার সামনের দিকে রাখুন। যাতে খিদে পেলে এগুলি খেতে পারেন।

৫। ফাইবার সমৃদ্ধ খাবার খান
গবেষণা বলছে ভিসকস ফাইবার বেশি খেলে ওজন কমার সম্ভাবনা বাড়ে। এ ধরনের ফাইবার ফ্ল্যাক্সসিড, ওটস, কমলালেবু, বিনের মতো খাবারে পাবেন। তাই রোজকার খাদ্যতালিকায় এগুলি রাখতে পারেন।

৭। পানীয় নিয়ে সাবধান
ফলের রস খাবেন বলে দোকান থেকে প্যাকেট কিনে আনবেন না। কৃত্রিমভাবে তৈরি ফলের রসে যে পরিমাণ চিনি থাকে, তাতে ওজন ঝট করে বেড়ে যেতে পারে। প্যাকেটের লাচ্ছি, ফ্লেভার দেওয়া দুধ, সোডা, ঠান্ডা পানীয় জাতীয় খাবার একদম বাদ দিয়ে দিন। তার বদলে চা, কফি বা গ্রিন টি খান চিনি ছাড়া। খুব অসুবিধা হলে মধু মেশাতে পারেন।

৮। মানসিক চাপ নিয়ন্ত্রণ
কম ঘুম এবং মানসিক চাপ বেশি থাকলে ওজন বাড়বেই। তাই রোজ এক সময়ে ঘুমোতে যান। ৭ থেকে ৮ ঘণ্টা ঘুমনোর চেষ্টা করুন। কোনও বিশেষ কারণে মানসিক চাপ থাকলে সেগুলোর সমাধান করার চেষ্টা করুন। কী করলে চাপ নিয়ন্ত্রণে থাকে সেগুলি খুঁজে বার করুন। যেমন যোগাভ্যাস বা ডায়েরি লেখা বা বাগান করা।

সূত্র: আনন্দবাজার