June 27, 2022

Knight TV

fight for justice

রাজধানীতে গাড়ি চলাচল বেড়েছে

করোনার সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে ১ থেকে ৭ জুলাই কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করে সরকার। পরে তা বাড়িয়ে ১৪ জুলাই পর্যন্ত করা হয়। ঈদুল আজহার কারণে ১৫ থেকে ২২ জুলাই পর্যন্ত কঠোর বিধিনিষেধ শিথিল করা হয়। পরে ২৩ জুলাই থেকে ৫ আগস্ট পর্যন্ত কঠোরতম বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়।

সকাল সাড়ে ১০টার দিকে রাজধানীর বাড্ডার ইউলুপ এলাকায় সরেজমিনে হিসাব করে দেখা গেল, প্রতি মিনিটে ৩৬টি ব্যক্তিগত গাড়ি, ১৪টি পণ্যবাহী যানবাহন ও অসংখ্য রিকশা চলাচল করছে। পাশাপাশি হেঁটে চলাচল করছে মানুষ। অধিকাংশের মুখেই মাস্ক নেই।

তবে ট্রাফিক পুলিশের সদস্যরা বলছেন, তাঁরা যাদের যাদের থামাচ্ছেন, তাদের মধ্যে কেউ বাইরে বের হওয়ার যৌক্তিক কারণ দেখাতে না পারলে অপরাধের মাত্রা বুঝে শাস্তির আওতায় আনা হচ্ছে।

ড্রাইভিং লাইসেন্স না থাকা, স্বাস্থ্যবিধি না মানা, মাস্ক না পরা, সরকারি নির্দেশনা অমান্য করার দায়ে অনেকে জরিমানা গুনছে। আবার অনেকে যৌক্তিক কারণ দেখিয়ে ছাড় পাচ্ছে। বিধিনিষেধ মানাতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের টহল ও মাইকিং করতে দেখা গেছে।

আজ সকালে রাজধানীর মালিবাগ, শান্তিনগর, কাকরাইল, মগবাজার, রামপুরা, বাড্ডা এলাকার সড়কে তুলনামূলক বেশি ব্যক্তিগত গাড়ি, খাদ্যসামগ্রী বহনকারী যানবাহন, মোটরসাইকেল, রিকশা চলাচল করতে দেখা গেছে। এসব সড়কের বিভিন্ন স্থানে রয়েছে পুলিশের তল্লাশিচৌকি।

এদিকে রিকশাচালকেরা যাত্রীদের কাছ থেকে দুই থেকে তিন গুণ বেশি ভাড়া নিচ্ছেন।

মিরপুর ৬ থেকে বনানীর কর্মস্থলে যাতায়াত করেন একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা মাহমুদুর রহমান। তিনি জানান, আজ সকালে রিকশায় করে অফিসে পৌঁছাতে তাঁর প্রায় ২০০ টাকা খরচ হয়েছে, যা তাঁর কাছে অনেক বেশি মনে হয়েছে। এই পথে বাসে যেতে ৩০ টাকা লাগে।

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকার অলিগলিতে গিয়ে দেখা যায়, অনেকে নির্বিঘ্নে ঘোরাফেরা করছেন। অনেকের মুখেই মাস্ক নেই।