June 29, 2022

Knight TV

fight for justice

নিজের বিয়ে নিয়ে কৃতি

অনলাইন ডেস্ক
প্রকাশ: ২৫ জুলাই ২০২১, ০৩: ৩০

বলিউড নায়ক পুলকিত সম্রাটের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে খোলামেলা কৃতি খরবান্দা। তবে এই মুহূর্তে বিয়ের মেজাজে তিনি একদম নেই। বিয়ের প্রসঙ্গ উঠতেই এই বলিউড নায়িকা বলেন, ‘এটা অত্যন্ত ব্যক্তিগত ব্যাপার। এখনই কিছু ভাবনাচিন্তা নেই। যখন হবে, তখন নিশ্চয় জানতে পারবেন। সবার সামনেই সাত পাকে বাঁধা পড়ব।’ বলিউডে বিয়ে মানেই রাজকীয় আয়োজন। অনেক তারকা আবার অত্যন্ত জাঁকজমকের সঙ্গে ‘ডেস্টিনেশন ম্যারেজ’ করেছেন। তবে এসবে মোটেও বিশ্বাসী নন কৃতি, ‘আমি সাধারণে বিশ্বাসী। আর বিয়ের ক্ষেত্রেও তা–ই। বেশি আড়ম্বর আমার কখনোই পছন্দ নয়। আমার বিয়েতে শুধু আমার প্রিয়জনেরা হাজির থাকবে।’
তবে বাস্তবে কনে না সাজলেও পর্দায় কনেরূপে একাধিকবার হাজির হয়েছেন কৃতি। চৌদা ফেরে ছবিতে আবার তিনি কনে। সব মিলিয়ে রোজ প্রায় ২০ ঘণ্টা তাঁর ছবির শুটিংয়ে চলে যেত। চার ঘণ্টা শুধু মেহেদি লাগাতেই লাগত। নিজেকে কনেরূপে আনতে লাগত ছয় ঘণ্টা।
পাঞ্জাবি কন্যা হয়েও গড়গড়িয়ে তামিল, তেলেগু, কন্নড় ভাষায় কথা বলতে পারেন কৃতশুটিং প্রসঙ্গে কৃতি বলেন, ‘করোনার মধ্যে আমাদের শুটিং শুরু হয়েছিল। তাই শুরুর দিকে বেশ ভয় করত। তার ওপর শুটিং শুরুর কিছুদিন আগেই আমার ম্যালেরিয়া হয়েছিল। তাই শরীর খুব দুর্বল ছিল। শুটিংয়ের সময় মাত্র চার ঘণ্টা ঘুমানোর সময় পেতাম। তাই সেটে মাঝেমধ্যে অসুস্থ হয়ে পড়তাম।’
কথায় কথায় উঠে আসে এই বলিউড নায়িকার সুপারহিট ছবি হাউসফুল ফোর–এর কথা। এই ছবির শুটিংয়ের সময়ও তিনি সেটে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন।
হাউসফুল ফোর–এর শুটিংয়ের সময় তিনি সেটে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন
কৃতি বলেন, ‘হাউসফুল ফোর ছবির শুটিং চলাকালীন আমি আঘাত পেয়েছিলাম। একটি কমেডি অ্যাকশন দৃশ্যের শুটিং চলছিল। অক্ষয় কুমার এক তলোয়ার দিয়ে ববি স্যারকে মারতে যাবে। আর হঠাৎ তলোয়ারটা ভেঙে আমার কাঁধে এসে পড়ে। আমার কাঁধের হাড়ে গভীর ক্ষত হয়। পরদিন যন্ত্রণায় কাঁধ হেলাতে পারছিলাম না। কিন্তু শুটিং তো করতেই হবে। যন্ত্রণা সহ্য করে শুটিং করেছিলাম। টানা ১০ দিন পর্যন্ত ব্যথা ছিল। তারই মধ্যে শুটিং চালিয়ে গিয়েছিলাম। আমার মনে হয়েছিল যে সবার আগে কাজ।’
পাঞ্জাবি কন্যা হয়েও গড়গড়িয়ে তামিল, তেলেগু, কন্নড় ভাষায় কথা বলতে পারেন কৃতি। এই বলিউড নায়িকা বলেন, ‘নতুন কিছু শিখতে আমি দারুণ ভালোবাসি। নতুন ভাষা শিখতেও আমার দারুণ লাগে। দক্ষিণি ছবিতে কাজ করার জন্য তামিল, তেলেগু, কন্নড় সব ভাষা রীতিমতো শিখেছি। তাই বাংলা ছবির প্রস্তাব এলে অবশ্যই লুফে নেব। আর বাংলা ভাষাটাও শিখে ফেলব।’