June 26, 2022

Knight TV

fight for justice

করোনাভাইরাসের যে রূপগুলো বিশ্ব কাঁপাচ্ছে

  • বৃহস্পতিবার,১৪ জুলাই, ২০২১

চিকিৎসাবিজ্ঞানের নর্ম অনুযায়ী একটা বিষয়কে প্রমাণ করার জন্য যে যে পরিমাণে ডাটার দরকার হয়, ভিওসিভুক্ত রূপগুলোতে তা পাওয়ার কারণেই গবেষকরা এই রূপগুলোর ব্যাপারে বিশ্বকে বিশেষভাবে সতর্ক করতে সচেষ্ট হয়েছেন। রূপগুলো মারাত্মকভাবে সংক্রামক, তাই  মানবদেহে গুরুতর অসুস্থতার কারণ হতে পারে এবং ভ্যাকসিন দেওয়ার পরে শরীরে তৈরি অ্যান্টিবডিগুলোকেও  দেহে সংক্রমণ ঘটাতে পারে।

রূপগুলো হচ্ছে

  • আলফা এই ভেরিয়েন্টের সংক্রমণক্ষমতা অত্যন্ত বেশি এবং বৃটিশ গবেষকদের মতে, আলফা ভেরিয়েন্টে আক্রান্ত হলে গুরুতর অসুস্থতার ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়।  ভ্যাকসিন গ্রহণ করার পরে এই ভেরিয়েন্টটি অধিকতর সংক্রমণ করতে সক্ষম হয় না। করোনাভাইরাসের আলফা রূপটি বৃটেনেই সবচেয়ে বেশি ধরা পড়েছে এবং সবচেয়ে বেশি মানুষকে সংক্রমিত করে মৃত্যুর সংখ্যা বাড়িয়েছে।
  • বিটার (Beta) উৎপত্তিস্থল দক্ষিণ আফ্রিকাতে। এই ভেরিয়েন্টে সংক্রমণের ঝুঁকি অত্যন্ত বেশি এবং সংক্রমণের পরে রোগীকে অতিদ্রুত মারাত্মক অসুস্থতার দিকে ধাবিত করে।  প্রথম ডোজ গ্রহণের পরে তৈরি হওয়া অ্যান্টিবডিকে দুর্বল করতে সক্ষম হয়। গবেষণায় দেখা যায় যে, ভ্যাকসিনের দুটি ডোজ গ্রহণের পরে গুরুতর অসুস্থতা থেকে রক্ষা পাওয়া যায়। এই ভেরিয়েন্টটি ইউরোপের প্রায় সব দেশেই মারাত্মকভাবে ছড়িয়েছে।
  • গামার (gama) উৎপত্তিস্থল ব্রাজিলে। এই ভেরিয়েন্টটি অত্যন্ত মারাত্মক। তবে গবেষণায় দেখা যায় যে, ভ্যাকসিন গ্রহণের পরে গুরুতর অসুস্থ রোগীর দেহে যথেষ্ট ভালো সুরক্ষা প্রদান করতে সক্ষম হচ্ছে। এই ভেরিয়েন্টটিও ইউরোপের অধিকাংশ দেশে অন্যান্য ভেরিয়েন্টের পাশাপাশি সমান তালে ছড়িয়েছে।
  • ডেল্টার (Delta) উৎপত্তিস্থল ভারতে।  সংক্রমণক্ষমতা অন্যান্য যেকোনো ভেরিয়েন্ট থেকে অনেক বেশি এবং গবেষণায় দেখা যায়, ডেল্টা ভেরিয়েন্টে আক্রান্ত হলে গুরুতর অসুস্থতার ঝুঁকিও বৃদ্ধি পায় সমানতালে। প্রথম ডোজে ভ্যাকসিনের প্রভাব দুর্বল হয়। তবে সাম্প্রতিক গবেষণায় দেখা যায়, ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণের পর গুরুতর অসুস্থতার বিরুদ্ধে বেশ ভালো সুরক্ষা প্রদান করতে সক্ষম হ

  • এটার (Eta) উৎপত্তিস্থল নাইজেরিয়াতে। এই ভেরিয়েন্টের দ্বারা সংক্রমণের ঝুঁকির পরিমাণ কেমন এবং সংক্রমণের পরে রোগীর অসুস্থতা ঝুঁকিবৃদ্ধির ব্যাপারেও গবেষকরা নিশ্চিত নন। তবে সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে, ভ্যাকসিন গ্রহণের পর গুরুতর অসুস্থতা থেকে রক্ষা পাওয়ার যথেষ্ট সম্ভবনা রয়েছে।
  • এপসিলনের (Epsilon) উৎপত্তিস্থল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। সংক্রমণ বৃদ্ধির ঝুঁকি- এবং গুরুতর ঝুঁকির ব্যাপারে গবেষকরা নিশ্চিত নন। তবে ভ্যাকসিন গ্রহণের পর গুরুতর অসুস্থ রোগীর সুস্থ্য হওয়ার সম্ভবনা আছে।
  • থেটার (Theta) উৎপত্তিস্থল ফিলিপাইনে। এই ভেরিয়েন্টে সংক্রমণের ঝুঁকি অত্যন্ত বেশি, তবে সংক্রমণে গুরুতর অসুস্থতা বৃদ্ধির ব্যাপারে গবেষকরা নিশ্চিত নন। ভ্যাকসিন গ্রহণে অসুস্থতা থেকে রক্ষা পাওয়ার সম্ভবনা আছে।
  • কপ্পার (Kappa) উৎপত্তিস্থল ভারতে। এই ভেরিয়েন্টটি যথেষ্ট সংক্রমক হলেও এর দ্বারা অসুস্থতার ঝুঁকির ব্যাপারটি স্পষ্ট নয়। তবে ভ্যাকসিন গ্রহণের পরে এই ভেরিয়েন্ট থেকে রক্ষা পাওয়া যায় ।