June 29, 2022

Knight TV

fight for justice

আমিরাতে পানির আকাল, ড্রোন আর নুন দিয়ে বৃষ্টি নামানোর চেষ্টা

  • ২৫ জুলাই, ২০২১

বিগত কয়দিনে জানা গেছে,মাটি খুঁড়লেই তেল পাওয়া যাচ্ছে। কিন্তু পানির জন্য হাহাকার পড়েছে। আর আরব আমিরাতের অবস্থা কিছুটা এমনই। ভূগর্ভস্থ যে পরিমাণ পানি রয়েছে তাতে লবণের ভাগ বেশি হওয়ায়, পরিশোধনের পরে এই পানি  পান করার যোগ্য করে তুলতে হচ্ছে।

পানীয় জল বলতে  সমুদ্রের লবণাক্ত পানিকে বোঝানো হচ্ছে। বড় পরিমাণ টাকা খরচের পর পরিশোধন করে খেতে হয় সেই পানি। এর সাথে সুদূর আটলান্টিক মহাসাগর থেকে জাহাজ দিয়ে পানি টেনে আনতে হয় হিমশৈল এবং সেই বরফ গলিয়ে তৈরি করা হয় পানীয় জল।

বিশ্বের দেশগুলোর ভেতর অন্যতম শুষ্ক দেশ এটি। বৃষ্টিপাতে অনেক কম হতে দেখা যায়। এর সাথে  যেন বেড়েই চলেছে তাপমাত্রাও। নাজেহাল এই অবস্থায় জনগণের রেহাই দিতে এবার ড্রোন ব্যবহার করে কৃত্রিমভাবে মেঘ থেকে বৃষ্টি ঘটালো আমিরাত।

এক গবেষণায় জানা গেছে, ব্রিটেনের ইউনিভার্সিটি অব রিডিংয়ে ড্রোন দিয়ে বৃষ্টি নামানোর এই কৌশল আবিষ্কার হয়েছে। এই প্রক্রিয়ার প্রধান গবেষক মার্টেন অ্যামবাউম জানান, আরব আমিরাতের ওপর যে টুক পরিমাণ মেঘ জমা হয়ে থাকে তার থেকে কৃত্রিমভাবে ভালো পরিমাণ বৃষ্টি হওয়ার সুযোগ রয়েছে।

আমিরাতের বৃষ্টি তৈরির বিজ্ঞান প্রক্রিয়ার আরেক অধিকর্তা আল মাজরউয়ি জানান, ড্রোনে  ব্যবহার করা হয়েছে ইলেকট্রিক চার্জ নির্গতকারী একটি যন্ত্র । এই যন্ত্র নিয়ে মেঘের কাছে উড়ে জেতে পারে ড্রোন টি। মেঘের মধ্যে ধনাত্মক এবং ঋণাত্বতি এই দু ধরনের আয়নই রয়েছে। এই দুই আয়নের ভারসাম্যের হেরফের ঘটিয়ে ইলেকট্রিক চার্জ নির্গতকারী যন্ত্রটি মেঘের মধ্যে থাকা অবস্থায় পানির কণাগুলোকে কাছাকাছি নিয়ে চলে আসে। এরপর সেই পানির কণাগুলো মিশে গিয়ে বড় পানির কণায় তৈরি করে  আর তা ভারী হয়ে  বৃষ্টি হয়ে ঝরতে থাকে।